রবিবার, ২৭ নভেম্বর ২০২২, ০১:২৬ পূর্বাহ্ন
/ ফিচার
কুলাউড়া উপজেলার পৌরসভায় প্রবেশ স্থানে দাঁড়িয়ে আছে লাল টুকটুকে কৃষ্ণচূড়া ফুলের গাছটি। দেখে যে কারো মনে হবে, পৌরসভায় প্রবেশে সবাইকে স্বাগত জানাতেই প্রকৃতির এমন লীলাখেলা। কৃষ্ণচূড়ার ঝরে পড়া পাপড়িতে সবুজ আরও পড়ুন
 ‘হারিকেন’ নামটা শুনা মাত্র অনেকের অতীতের কথা মনে করিয়ে দেয়। এটি গ্রামীন ঐতিহ্যের প্রতীকগুলোর মধ্যে অন্যতম একটি। বিদ্যুৎবিহীন গ্রামের অন্ধকার দূর করার একমাত্র অবলম্বন ছিল হারিকেনের আলো।   হারিকেন হচ্ছে
‘লজ্জাবতী’, আমরা সবাই কমবেশি এই উদ্ভিদটির সঙ্গে পরিচিত। ‘লজ্জাবতী’ দেখেছেন অথচ ছুয়ে তার লজ্জার প্রকাশিত হতে দেখেনি এমন পাওয়া দুস্কর। লজ্জাবতীর ইংরেজী নাম ‘মিমোশা’। মিমোশা মেয়েদের নাম, কাকতালীয়ভাবে হলেও সত্য
লাল টিনের চাল, চারিদিকে নাই বেড়া। চোখ খোললেই শুধু সবুজ আর সবুজ। আকাশের নীল এসে যেন দিগন্ত ছুঁয়েছে। যতদূর চোখ যায়, চারদিকে ছোট-বড় সবুজ পাহাড়। বিভিন্ন জাতের রঙ বেরঙের ফুল
চারিদিকে চায়ের সমারোহ মাঝখানে চোখ জুড়ানো শাপলা ফুল। পানির ওপর ফুটে থাকা শাপলা ফুলের নজরকাড়া সৌন্দর্য সত্যিই সবাইকে মুগ্ধ করে। চোখে না দেখলে সুন্দরতার অনুমান করা যায় না। চা বাগানের মধ্যে
Theme Created By ThemesDealer.Com